আজকের তারিখঃ20 June, 2020

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ – ৫টি সেরা কার্যকরী উপায়

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করতে হলে আমাদের বর্তমানে যেটি সব থেকে বেশি প্রয়োজন সেটি হলো নিজের ইমিউন বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করা। অন্যান্য দেশের দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যাবে অনেকটা প্রতিরোধ ব্যবস্থা গ্রহন করেও অনেকটা সচেতনতা অবলম্বন করেও অনেক মানুষ ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছে।

তাই এই মুহুর্তে সকল সচেতনতার পাশাপাশি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আরো কিছু উপায় অবলম্বন করতে হবে। ভাইরাসের জন্য নিজেকে প্রস্তত করার বিকল্প আর নেই। কারণ কোন চিকিৎসা ব্যবস্থা আপনাকে এই মুহুর্তে সাহায্য করতে পারবে না। ভাইরাসের সাথে যুদ্ধে আপনার কাছে যা রয়েছে সেটি হলো আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বা ইমিউন সিস্টেম।

কথা না বাড়িয়ে মূল আলোচনায় যাওয়া যাক,

করোনা প্রতিরোধ

প্রথমত অবশ্যই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে, বর্তমানে শুধু সামাজিক দূরত্বই নয় পারিবারিক দূরত্ব অবলম্বনের দিকেও জোড় দেয়া হচ্ছে। পরিবারের মধ্যে সকলের সাথে যতটা সম্ভব দূরত্ব বজায় রাখা আবশ্যক। এরপরই নিয়মিত হাত ধোয়া, পরিষ্কর পরিচ্ছন্ন থাকা ইত্যাদি। এগুলো অবশ্যই মেনে চলতে হবে এবং পাশাপাশি আরো ৫ টি বিষয় রয়েছে যেগুলোর নিয়মিত চর্চা আপনাকে করোনা প্রতিরোধে যথেষ্ট সাহায্য করবে।

১। সুষম খাবার

সুষম খাবারের বিকল্পও আর কিছু নেই। আমরা জানিই স্বাস্থ্যকর খাবার আমাদের সুস্থ থাকতে যথেষ্ট সাহায্য করে। এর বাইরেও আমাদের দেহের এন্টিবডি তৈরি হয় আমরা যা খাই সেটির মাধ্যমেই। দূর্বল অস্বাস্থ্যকর খাবার খেলে এন্টিবডিও দূর্বল হয়ে পড়ে। তাই এই মূহুর্তে প্রচুর স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে।

করোনা প্রতিরোধে সুষম খাবার

করোনা প্রতিরোধে সুষম খাবার খান

আমিষ জাতীয় খাদ্যের পাশাপাশি প্রচূর শাকসবজি খেতে হবে। প্রতিদিন নিয়মিত পরিমিত দুধ, ডিম, কলা, শাকসব্জি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

ইংরেজিতে একটা কথা প্রচলিত রয়েছে ” You become what you eat ” অন্তত এই রকম একটা ক্রাইসিস সময়ে সুষম খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

সকল প্রকার জাংক পরিহার করতে হবে, চিনিও কম খেতে হবে, বিভিন্ন ফলমূল যেমন খেজুর, কলা ইত্যাদি থেকে গ্লূকোজ আহরণ করুন। নিজের ইমিউন সিস্টেমের সেরা পারফর্মেন্স নিশ্চিত করতে আজ থেকেই সুষম খাবারের প্রতি জোড় দিন।

২। প্রচুর পানি পান করুন

আমাদের দেহের ফ্যাগোসাইট পানিতে (এক্সট্রা সেলুলার ফ্লুয়িড) সাঁতরে জীবাণুর বিরুদ্ধে লড়াই করে। বিস্তারিতভাবে জানতে কমেন্ট বক্সে দেয়া ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন। আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে পানির অবদান অনেক অনেক বেশি।

এক্ষেত্রে নিরাপদ ও পরিষ্কার পানিয় পান করা জরুরী। শুধু পানিই নয়, আপনি চাইলে বিভিন্ন ফলের জুস, গ্লুকোজ ইত্যাদি স্বাস্থ্যকর পানিয় পান করতে পারেন। প্রতিদিন একজন মানুষের অন্তত আড়াই থেকে সাড়ে তিন লিটার পানি পান করা প্রয়োজন।

করোনা প্রতিরোধে প্রচুর পানি পান করুন

করোনা প্রতিরোধে প্রচুর পানি পান করুন

পরিমিত পানি পান করা নিশ্চিত করুন। পানি আপনার দেহের খাবার গুলোকেও সঠিকভাবে দেহের সকল প্রান্তে পৌঁছে দেবে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এখন থেকেই প্রচুর পানি (২-৩ লিটার) খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

আপনার বয়স ও ওজন অনুযায়ী প্রতিদিন কতটুকু পানি প্রয়োজন সেটি ক্যালকুলেট করে বের করতে চাইলে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন

৩। নিয়মিত শরীরচর্চা

নিয়মিত শরীরচর্চা গুরুত্ব যারা করে তারাই বোঝে। দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে সবসময় কর্মচঞ্চল থাকতে হলে আপনাকে অবশ্যই নিয়মিত শরীরচর্চা করতে হবে। বর্তমানে কোয়ারেন্টিন অবস্থায় বাসায় থেকেই শরীরচর্চা করা সম্ভব। ইচ্ছা থাকলেই সম্ভব।

একজন স্পোর্টসম্যানের ইমিউন সিস্টেম অন্য যেকোন সাধারণ মানুষের থেকে কয়েকগুন বেশি হয়ে থাকে। করোনা যুদ্ধে জয়ী হতে চাইলে আপনাকে স্পোর্টসম্যান হওয়ার দরকার নেই, শুধু নিয়মিত শরীরচর্চা করতে হবে।

করোনা প্রতিরোধে শরীরচর্চা

করোনা প্রতিরোধে শরীরচর্চা

ইমিউন সিস্টেম শক্তিশালী করতে প্রতিদিন ৪০ মিনিট থেকে ১ ঘন্টা শরীরচর্চাই যথেষ্ট সাহায্য করবে। তাই আজ থেকেই শুরু করে দিন।

বাসায় কিভাবে করবেন?

আপনার এন্ড্রয়েড ফোনের প্লেস্টরে হোম এক্সারসাইজ নামে একটা এপ আছে কখনো শুনেছেন? আইফোন ইউজারদের এপস্টোরেও পেয়ে যাবেন। এই সময় এই এপটি অনেক কাজে দেবে। ইউটিউবে শত শত ভিডিও পেয়ে যাবেন হোম এক্সারসাইজ লিখে সার্চ করলে।

বাসায় দড়ি খেলা, পুশ আপ দেয়া, স্কোয়াট সহ প্রায় সব ধরনের এক্সারসাইজ করা সম্ভব। একটিভ থাকতে হলে ঘাম ঝড়াতে হবে। সুষম খাদ্য আর পানি গুলোকে কাজে লাগিয়ে আজ থেকেই করোনা প্রতিরোধে এক্সারসাইজ শুরু করুন।

৪। দুশ্চিন্তা চিন্তামুক্ত থাকুন

করোনা প্রতিরোধে দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকুন

করোনা প্রতিরোধে দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকুন

বৈজ্ঞানিকভাবে এটি প্রমাণিত যে, মানসিক চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পরলে আমাদের দেহে যে হরমোন নির্গত হয় তা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করে। তাই এই মহামারি সময়টাতে মানসিকভাবে চিন্তামুক্ত থাকা টা অত্যন্ত জরুরী।

যদিও বর্তমান বিশ্বপরিস্থিতি ও দেশের পরিস্থিতি তে পুরোপুরি মানসিকভাবে চিন্তামুক্ত থাকা টা কঠিন। তবে করোনা যুদ্ধে জয়ী হতে গেলে অবশ্যই আপনাকে দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকতেই হবে।

 

কিভাবে মানসিকভাবে দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকব?

  • সবসময় মহামারি বিষয়ক খবর শোনা থেকে বিরত থাকুন।
  • পজিটিভ খবর (সুস্থ্যতার হার) গুলো বেশি বেশি পড়ুন।
  • পরিবারের সাথে সময় কাটান, নিরাপদ দূরত্বে থেকে গল্পগুজব করুন।
  • নিজের জীবনের অনেক উত্থান পতনের কথা স্বরণ করুন, খারাপ সময় গুলো কতটা সাহসীকতার সাথে পার করেছেন নিজেকে মনে করিয়ে দিন।
  • একদিন আবার সকল কিছু স্বাভাবিক হয়ে আসবে, ধৈর্য রাখুন।
  • সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করুন নিয়মিত ইবাদত করুন সাহায্য চান।
  • এবং মেডিটেশনও করতে পারেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ছাড়াও শারিরীক ভাবে সুস্থ থাকতে হলে অবশ্যই মানসিক দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকার অভ্যাস গঠন করতে হবে।

৪। ভিটামিন ও সাপ্লিমেন্টস

উপরের সবকিছু সঠিকভাবে পালন করার পর আপনার ইমিউন সিস্টেমকে আরো বুস্ট করতে চাইলে কিছু পরিমিত ভিটামিন নিতে পারেন। বিশেষ করে ভিটামিন সি, ভিটামিন ই ও ভিটামিন এ এগুলো এন্টি অক্সিড্যেন্ট নামে পরিচিত।

নিয়মতি প্রতিদিন স্বল্প পরিমানে এসব ভিটামিন গ্রহন করতে পারেন। তবে যেহেতু আমি কোন ডাক্তার না আর এই বিষয়ে যথেষ্ট রিসার্চও নেই। তাই রেকোমেন্ড করব আপনার নিকটস্থ কোন পরিচিত ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহন করার জন্য।

নিকটস্থ যেকোন ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করে আপনার ডেইলি ডোজ ঠিক করে নিন এবং প্রতিদিন নিয়মতি কিছু ভিটামিন নিতে পারেন।

 

ভিটামিন আমাদের খাদ্য গুলিকে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে সহায়তা করবে এবং আমাদের হার্ট, ফুসফুস,লিভার ইত্যাদি নানা অঙ্গকে সচল রাখতে সহযোগিতা করবে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সাহায্যকারী হতে পারে ভিটামিন সাপ্লিমেন্ট গুলো।

শেষ কিছু কথা

জন্ম বা মৃত্যু সৃষ্টিকর্তার হাতে। তবে জীবনযুদ্ধে সর্বাত্মক চেষ্টা করাই জ্ঞানীদের কাজ। জীবনের শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত লড়াই করে যেতে হবে ভাইরাসের বিরুদ্ধে। নিজেকে প্রস্তত করুন এখনই। প্রস্তত হোন কভিড ১৯ যুদ্ধে।

আপনার যদি আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকে, দয়া করে বন্ধু বান্ধব ও পরিবারবর্গের সাথে শেয়ার করুন। আপাতত আমরা কোন এডভারটাইজমেন্ট রাখছিনা। এবং শুধু দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে ইংলিশ নিউজ ম্যাগাজিনকে বাংলায় রুপান্তর করে ফেলেছি।

নতুন এই নিউজ ম্যাগাজিনটিকে এগিয়ে নিতে ও আপনাদের কাছে বিশ্বমানের আর্টিকেল পৌঁছে দিতে আপনাদের সহযোগিতা একান্ত কাম্য।

পড়তে ও লিখতে ভালোবাসি

Subscribe
Notify of
guest
8 Comments
Most Voted
Newest Oldest
Inline Feedbacks
View all comments
Arib
Arib
2 months ago

Very helpful bro!!!

Fahim Faiaz Adib
Fahim Faiaz Adib
2 months ago

পড়ে সত্যিই উপকৃত হলাম।
বাংলায় এমন তথ্যবহুল আর্টিকেল সচারচর দেখা যায় না।

Sarowar Mahmud
Sarowar Mahmud
2 months ago

fantastic writing!!!
valuable informations
but one thing if I do weighlifting,would it be enough 4physical exercise?

শাহরিয়ার প্রিয়
শাহরিয়ার প্রিয়
2 months ago

অসাধারণ আর্টিকেল খুব সুন্দর অনেক কনসেপ্ট পরিষ্কার হয়ে গেলো ধন্যবাদ তাওসিফ

8
0
আপনার মতামত আমাদের অনুপ্রেরণাx